ঢাকাবুধবার , ১৯ এপ্রিল ২০২৩
  1. Covid-19
  2. অপরাধ ও আদালত
  3. অর্থনীতি
  4. আন্তর্জাতিক
  5. ইসলাম ডেস্ক
  6. কৃষি ও অর্থনীতি
  7. খেলাধুলা
  8. জাতীয়
  9. তথ্য-প্রযুক্তি
  10. দেশজুড়ে
  11. নির্বাচন
  12. বানিজ্য
  13. বিনোদন
  14. ভিডিও গ্যালারী
  15. মুক্ত মতামত ও বিবিধ কথা
আজকের সর্বশেষ সবখবর

আব্দুল লতিফ প্রধানেই আস্থা গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের

প্রতিবেদক
প্রতিদিনের বাংলাদেশ
এপ্রিল ১৯, ২০২৩ ৪:৪৪ অপরাহ্ণ
Link Copied!

গাইবান্ধা প্রতিনিধিঃ আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আব্দুল লতিফ প্রধানকে গাইবান্ধা ৪ ( গোবিন্দগঞ্জ) আসনের সংসদ সদস্য হিসাবে দেখতে চায় বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ও তার সকল অঙ্গসংগঠনের গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার সকল ইউনিটের নেতাকর্মীরা।
জননেতা আব্দুল লতিফ প্রধান গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে সবচেয়ে বেশী জনপ্রিয় বলে দাবী তার সমর্থকদের।
বাংলাদেশ ছাত্রলীগের মাধ্যমে রাজনীতি হাতে খড়ি আব্দুল লতিফ প্রধানের। ছাত্রলীগের নেতা হিসাবে দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি হন জনপ্রতিনিধি। ২০০৩ সালে ৪ দলীয় জামাত বিএনপি সরকারের আমলে তিনি প্রথম বিপুল ভোটের ব্যবধানে গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার ১৬ নং মহিমাগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। এর পর টানা ২০১৮ সাল পর্যন্ত তিনি এই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়াও তিনি ইউপি চেয়ারম্যান অ্যাসোসিয়েশনের গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা শাখার সভাপতি হিসাবেও দীর্ঘদিন দায়িত্ব পালন করেন।
২০১৮ সালে তিনি উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনীত, নৌকা মার্কার প্রার্থী হিসাবে নির্বাচনে অংশ নিয়েও বিপুল ভোটের ব্যবধানে গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। বর্তমানে তিনি গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান হিসাবে দক্ষতার সাথে দায়িত্ব পালন করছেন। আব্দুল লতিফ প্রধান স্কুল শাখা ছাত্রলীগে সভাপতির দায়িত্ব পালনের মধ্যদিয়ে রাজনীতির নেতৃত্ব দেওয়া শুরু হয়। এরপর উপজেলা ছাত্রলীগে সাধারণ সম্পাদক, গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হিসাবেও দায়িত্ব পালন করেন। বর্তমানে তিনি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা শাখার সভাপতি হিসাবে সুনামের সাথে দায়িত্ব পালন করছেন।

গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার তৃনমুল আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের দাবী আব্দুল লতিফ প্রধানকে আগামী দিনে সংসদ সদস্য হিসাবে দেখতে চান। তাকে মনোনয়ন দিলে তিনি গোবিন্দগঞ্জ উপজেলাবাসী তাকে বিপুল ভোটের ব্যবধানে সংসদ সদস্য নির্বাচিত করবেন।

তারা মনে করেন- নিজগুণে যদি জিততে হয় তবে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল লতিফ প্রধান এই আসনে নৌকার বিজয় নিশ্চিত করতে পারবেন। কারণ আব্দুল লতিফ প্রধান স্থানীয় তরুণ প্রজন্মের কাছে আওয়ামী লীগের আস্থার প্রতীক হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে সক্ষম হয়েছেন। ইউপি নির্বাচনে বিপুল ভোটের ব্যবধানে পর পর তিনবার চেয়ারম্যান ও বর্তমানে উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে স্থানীয় রাজনীতিতে নিজেকে টেনে নিয়ে এসেছেন জনপ্রিয়তার শীর্ষে। গোবিন্দগঞ্জের সাবির্ক উন্নয়নও হচ্ছে তার হাতধরেই। তাই দলীয় কর্মী-সমর্থকসহ এলাকাবাসীর অধিক আগ্রহের কারণ- আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের এমপি প্রার্থী হিসেবে আব্দুল লতিফ প্রধানকে নৌকা প্রতিক দিলে বিজয় সুনিশ্চিত।

আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিসহ আওয়ামী লীগ-যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও তাদের সহযোগী সংগঠনের প্রবীন ও নতুন প্রজন্মের নেতা-কর্মীরা জানিয়েছেন, এলাকাবাসীর অত্যন্ত আস্থাভাজন ও তাদের সুখ-দুঃখের অংশীদার হিসেবে আব্দুল লতিফ প্রধানকেই আগামী সংসদ নির্বাচনে এমপি প্রার্থী হিসেবে দেখতে চায়। এ উপজেলার উঠতি ভোটারদের মতে আব্দুল লতিফ প্রধান গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হবার পর স্থানীয় রাজনীতিকে যেভাবে সুসংগঠিত করে সাজিয়েছেন এবং নেতা-কর্মীদের আস্থা অর্জন করেছেন সেখানে আব্দুল লতিফ প্রধানের বিকল্প কোন প্রার্থী নাই।

মহিমাগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, আব্দুল লতিফ প্রধান একজন পরিপুর্ণ রাজনীতিবিদ। তরুণ এই রাজনৈতিক নেতা দিনের ২৪ ঘন্টার মধ্যে ১৮ ঘণ্টাই রাজনীতির পেছনে ব্যয় করেন। স্থানীয় জনগণ তাকে সবসময়েই কাছে পায়। তাই স্থানীয় রাজনৈতিক নেতা-কর্মীগণ এমন একজন কর্মীবান্ধব নেতাকেই এমপি হিসেবে পেতে চায়। তিনি আরো বলেন একজন যোগ্যনেতা হিসেবে জনগণের সাথে রয়েছে তার যথেষ্ঠ সম্পৃক্ততা। তিনি একজন ন্যায় বিচারক। মাদকের বিরুদ্ধে তিনি সবসময়ই সোচ্ছার ভুমিকা রেখে আসছেন। যে কারণে সারা গোবিন্দগঞ্জ জুড়ে আব্দুল লতিফ প্রধানের রয়েছে ব্যাপক জনপ্রিয়তা। এলাকাবাসী তাদের যেকোন ধরনের চাহিদার সময় আব্দুল লতিফ প্রধানকে কাছে পায়।
রাজাহার ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ সোহেল রানা শিপলু বলেন, আব্দুল লতিফ প্রধান হচ্ছেন মাটি ও মানুষের নেতা। একদম তৃণমূল থেকে কিভাবে দলকে সু-সংগঠিত রাখতে হয়। কিভাবে তৃণমূলের একজন নেতা-কর্মীর মন জয় করা যায় এসব গুণাবলী তার মধ্যে বিদ্যমান। এলাকাবাসী তাদের নেতা হিসেবে ঘুরেফিরে তাকেই সবসময় কাছে পায়। তাই তার প্রতি এলাকার সাধারণ জনগনের বড় রকমের একটা আস্থা তৈরী হয়েছে। এ আস্থা থেকেই এলাকাবাসী তাকে এমপি হিসেবে পেতে চায়।

আপনার মন্তব্য লিখুন