ঢাকারবিবার , ১৯ জুন ২০২২
  1. Covid-19
  2. অপরাধ ও আদালত
  3. অর্থনীতি
  4. আন্তর্জাতিক
  5. ইসলাম ডেস্ক
  6. কৃষি ও অর্থনীতি
  7. খেলাধুলা
  8. জাতীয়
  9. তথ্য-প্রযুক্তি
  10. দেশজুড়ে
  11. নির্বাচন
  12. বানিজ্য
  13. বিনোদন
  14. ভিডিও গ্যালারী
  15. মুক্ত মতামত ও বিবিধ কথা
আজকের সর্বশেষ সবখবর

একসঙ্গে পরীক্ষা দিয়ে পাস করলেন বাবা, অকৃতকার্য ছেলে

প্রতিবেদক
প্রতিদিনের বাংলাদেশ
জুন ১৯, ২০২২ ৫:০২ অপরাহ্ণ
Link Copied!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | লেখাপড়ার কোনো বয়স নেই। যে কেউ যে কোনো বয়সেই লেখাপড়া চালিয়ে যেতে পারেন। ভারতের কেরালা রাজ্যের কাত্যায়নী আম্মা ২০১৮ সালে ৯৬ বছর বয়সে শারীরিক প্রতিকূলতাকে জয় করে পড়াশোনা শুরু করেছিলেন। শুধু তাই নয়, পরীক্ষা দিয়ে পাসও করেছিলেন।

পড়াশোনার ক্ষেত্রে বয়স যে কোনো বাধা নয়, তা আবারও প্রমাণিত হলো। মহারাষ্ট্রের পুণে শহরের বাসিন্দা ভাস্কর ওয়াঘমার এবার এসএসসি পরীক্ষায় পাস করেছেন। ছোট ছেলের সঙ্গে এবার পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিলেন ৪৩ বছর বয়সী এই ব্যক্তি। তবে পরীক্ষায় তিনি পাস করতে পারলেও তার ছেলে কৃতকার্য হয়নি।

ভাস্কর ওয়াঘমার জানিয়েছেন, পড়াশোনা করার প্রবল ইচ্ছা ছিল তার। কিন্তু সংসারে দায়িত্ব নেওয়ার পর সপ্তম শ্রেণির পর আর পড়াশোনা করতে পারেননি তিনি। পড়াশোনা ছেড়ে কাজে ঢুকতে বাধ্য হয়েছিলেন। কিন্তু পড়াশোনার সুপ্ত বাসনা মনের মধ্যে সব সময়ই ছিল। সুযোগের অপেক্ষায় ছিলেন তিনি। দীর্ঘ ৩০ বছর পর সেই সুযোগ এলো। বাবা নয়, সহপাঠী হিসেবেই ছোট ছেলেকে সঙ্গে নিয়ে বোর্ড পরীক্ষায় অংশ নেন ভাস্কর।

তিনি বলেন, ইচ্ছা থাকলেও পারিবারিক দায়িত্বের কারণে পড়াশোনার সুযোগ হয়ে ওঠেনি। তবে নতুন করে শুরু করার ইচ্ছা থেকেই পড়াশোনা শুরু করেছিলাম। এখন আমার ছেলের জন্য চিন্তা হচ্ছে। ও পাস করলে আরও বেশি আনন্দ পেতাম। ও আমাকে পড়াশোনা করতে খুবই সাহায্য করেছিল।

ছেলে সাহিলের গলায় কিন্তু অন্য সুর। সে জানিয়েছে, নিজে পাস করতে না পারলেও বাবার পাসের খবরে সে খুব খুশি। পরবর্তীতে তার বাবা যদি আরও পড়তে চান, তাহলে সে সাহায্য করবে বলেও জানিয়েছে। নিজেও হাল ছাড়বে না এই কিশোর। পরের বার পরীক্ষা দিয়ে যেন পাস করতে পারে সেই চেষ্টা চালিয়ে যাওয়ার কথা জানিয়েছে সে।

আপনার মন্তব্য লিখুন