ঢাকাবৃহস্পতিবার , ২০ জানুয়ারি ২০২২
  1. Covid-19
  2. অপরাধ ও আদালত
  3. অর্থনীতি
  4. আন্তর্জাতিক
  5. ইসলাম ডেস্ক
  6. কৃষি ও অর্থনীতি
  7. খেলাধুলা
  8. জাতীয়
  9. তথ্য-প্রযুক্তি
  10. দেশজুড়ে
  11. নির্বাচন
  12. বানিজ্য
  13. বিনোদন
  14. ভিডিও গ্যালারী
  15. মুক্ত মতামত ও বিবিধ কথা
আজকের সর্বশেষ সবখবর

করোনা সংক্রমণে পিছিয়ে আছে কুড়িগ্রাম!

প্রতিবেদক
প্রতিদিনের বাংলাদেশ
জানুয়ারি ২০, ২০২২ ৮:২৮ অপরাহ্ণ
Link Copied!

আনিসুর রহমান,স্টাফ রিপোর্টারঃ বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া ভয়াবহ মরণঘাতী ভাইরাস করোনা সংক্রমণে পিছিয়ে থাকা কুড়িগ্রাম জেলা গ্রীন জোনে পড়েছে।

কুড়িগ্রাম সদর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী গত এক সপ্তাহে(১৯ জানুয়ারি পর্যন্ত) সংক্রমণের লক্ষণ থেকে এন্টিজেন টেস্ট করে ৩২ জনের মধ্যে ৫ জনের শরীরে এর উপস্থিতি পাওয়া গেছে , এটি শতকরা হিসেবে ১৫.৬২% এবং করোনা আক্রান্তে মৃতের সংখ্যা শূন্য তবে এই নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা বাড়ালে সংক্রামিত ব্যক্তির সংখ্যা আরো কম-ও হতে পারে কিংবা বাড়তেও পারে।

জেলায় করোনা টিকার বিষয়ে জানা যায়, জেলার মোট জনসংখ্যার (২৪ লক্ষ ৪৬ হাজার ৩৫৯ ) ৫১ শতাংশ মানুষের শরীরে এই করোনার টিকা ইতিমধ্যেই নিশ্চিত করা হয়েছে এবং পর্যাপ্ত টিকা মজুদ আছে বলেও জানা গেছে।
স্কুলশিক্ষার্থীদের টিকা কার্যক্রমের অবস্থা সম্পর্কে জানতে চাইলে জেলা পরিবার পরিকল্পনা ও স্বাস্থ্য বিভাগ সিভিল সার্জন অফিসের হিসাব রক্ষণ কর্মকর্তা মোঃ আখের জানান, জেলায় ১ লক্ষ ৭২ হাজার ৭৯০ জন শিক্ষার্থীর শরীরে টিকা প্রদান নিশ্চিত করা হয়েছে এবং গতকাল ১৯ জানুয়ারি পর্যন্ত ১২ হাজার দুইশত তিন জনকে বুস্টার ডোজ দেয়া হয়েছে ।
উক্ত পরিসংখ্যানের ও টেস্টের সংখ্যার বিষয় জানতে চাইলে কুড়িগ্রাম জেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ও সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ মনজুর-এ-মোর্শেদ উক্ত পরিসংখ্যান এর সত্যতা নিশ্চিত করে জানান টেস্টের সংখ্যা বাড়লে এর সংক্রমনের সংখ্যাটা আমাদের আরও স্পষ্ট হতো। প্রতিটি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের প্রধানগণকে এ বিষয়ে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে, তবে ব্যাপক প্রচার-প্রচারণা ও জনসচেতনতা সৃষ্টি করার পরেও সাধারন জনগনের অনাগ্রহের কারণে এই টেস্টের সংখ্যা আশানুরূপ পর্যায়ে করা যাচ্ছে না, তার পরেও সন্দেহজনক মনে হলে তাকে টেস্টের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে এবং আমরা এর অগ্রগতির জন্য যথাসাধ্য চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে কুড়িগ্রামের জেলা প্রশাসক মোঃ রেজাউল করিম বলেন, আমরা টীকা প্রয়োগে শতভাগ নিশ্চিত করার বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করেছি। সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে প্রতিদিন প্রচার-প্রচারণা মাইকিং ও অন্যান্য মাধ্যমে আমরা চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। কেউ যদি এ এ সংক্রান্ত বিধি নিষেধ ও প্রশাসনিক কর্মকাণ্ড অমান্য করে কিংবা অসহযোগিতা করে তো সে ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া হবে।

আপনার মন্তব্য লিখুন