ঢাকাবুধবার , ২৬ জানুয়ারি ২০২২
  1. Covid-19
  2. অপরাধ ও আদালত
  3. অর্থনীতি
  4. আন্তর্জাতিক
  5. ইসলাম ডেস্ক
  6. কৃষি ও অর্থনীতি
  7. খেলাধুলা
  8. জাতীয়
  9. তথ্য-প্রযুক্তি
  10. দেশজুড়ে
  11. নির্বাচন
  12. বানিজ্য
  13. বিনোদন
  14. ভিডিও গ্যালারী
  15. মুক্ত মতামত ও বিবিধ কথা
আজকের সর্বশেষ সবখবর

কর্মচারীদের মাইলেজ জটিলতার কারণে ছাড়েনি মেইল ট্রেন!

প্রতিবেদক
প্রতিদিনের বাংলাদেশ
জানুয়ারি ২৬, ২০২২ ৮:৫১ অপরাহ্ণ
Link Copied!

আশরাফুল হক, লালমনিরহাটঃ মাইলেজ জটিলতায় রেলওয়ে রানিং কর্মচারী ঐক্য পরিষদের কর্মবিরতিতে লালমনিরহাট স্টেশন ছাড়েনি বগুড়া কমিউটার ট্রেন। বুধবার(২৬ জানুয়ারী) লালমনিরহাট রেলওয়ে স্টেশন থেকে ছেড়ে যায়নি সান্তাহার গামি বগুড়া কমিউটার ট্রেন।

জানা গেছে, বাংলাদেশ রেলওয়ের রার্নিং স্টাফ ও কর্মচারীদের মাইলেজ প্রদানের দাবিতে কর্মবিরতি পালন করছে বাংলাদেশ রেলওয়ে রানিং কর্মচারী ঐক্য পরিষদ। তাদের কর্মবিরতির কারনে বুধবার লালমনিরহাট রেলওয়ে স্টেশন ছেড়ে যায়নি বগুড়া কমিউটার ট্রেন। ফলে দুর্ভোগে পড়েছে উত্তরবঙ্গের যাত্রী সাধারন। শ্রম আইন ও সরকারী মতে ৮ঘন্টা একজন কর্মচারীর কর্মঘন্টা ধরা হয়। কিন্তু ট্রেনের কর্মচারীদের ট্রেন চালু থেকে পরবর্তি ফিরে আসা পর্যন্ত টানা দায়িত্ব পালন করতে হয়।

ফলে লোকমাষ্টার, ট্রেন পরিচালক ও টিটিইদের কর্মঘন্টার অতিরিক্ত শ্রম দিতে হয়। এ কর্মঘন্টার অতিরিক্ত শ্রমের মাইলেজ দাবি করে আসছে রেলওয়ে রানিং স্টাফ ও কর্মচারীরা। যা আদায় করতে দীর্ঘ দিন ধরে বিভিন্ন কর্মসুচি পালন করে আসছে রেলওয়ে কর্মচারীরা। কেন্দ্রীয় টিটিই অ্যাসোশিয়েশনের আইন বিষয়ক সম্পাদক লালমনিরহাটের টিটিই গোলাম মোহাম্মদ জাকির বলেন, এটা আমাদের পারিশ্রমিকের ন্যায় সঙ্গত দাবি। সরকার প্রদানে ইচ্ছা পোষন করলেও অর্থ মন্ত্রনালয়ের জঠিলতায় আটকে আছে। এটা দ্রুত নিরসন না করলে আগামী ৩০ জানুয়ারীর পরে সকল ট্রেনে কর্মবিরতি পালন করা হবে।

লালমনিরহাট বিভাগিয় রেলওয়ের রানিং কর্মচারী ঐক্য পরিষদের সভাপতি লোকমাষ্টার মজিবুর রহমান বলেন, আমাদের ন্যায় সঙ্গত দাবি দ্রুত বাস্তবায়ন করতে ঊর্দ্ধতন মহলকে অনেকবার বলা হয়েছে। অনেক কর্মসুচি পালন করেছি। এ দাবি পুরন না হলে সারা দেশের সকল ট্রেনে কর্মবিরতি পালন করা হবে। লালমনিরহাট রেলওয়ে বিভাগীয় ম্যানেজার শাহ সুফি নুর মোহাম্মদ বলেন, বগুড়া কমিউটার বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের সাধ্যমে পরিচালিত।

নিয়মানুযায়ী তারা যাত্রা সময়ের দুই ঘন্টা আগে আবেদন করে যাত্রা বাতিলের দাবি করলে আমরা অনুমোদন করেছি। তাদের চুক্তি অনুযায়ী এ যাত্রা বাতিলের কারনে একদিনের আয় থেকে বঞ্চিত হলো রেলওয়ে। বিকল্প ব্যবস্থা না থাকায় দুর্ভোগে পড়া যাত্রীদের পরিবহনের কোন ব্যবস্থা করা যায়নি। কর্মবিরতি দেয়া কর্মচারীদের দুইটি দাবির একটি পুরন হয়েছে। বাকী দাবিও হয়তো কিছু দিনের মধ্যে সরকার পুরন করবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন