ঢাকাশুক্রবার , ১০ ডিসেম্বর ২০২১
  1. Covid-19
  2. অপরাধ ও আদালত
  3. অর্থনীতি
  4. আন্তর্জাতিক
  5. ইসলাম ডেস্ক
  6. কৃষি ও অর্থনীতি
  7. খেলাধুলা
  8. জাতীয়
  9. তথ্য-প্রযুক্তি
  10. দেশজুড়ে
  11. নির্বাচন
  12. বানিজ্য
  13. বিনোদন
  14. ভিডিও গ্যালারী
  15. মুক্ত মতামত ও বিবিধ কথা
আজকের সর্বশেষ সবখবর

কাঁকড়ার দাপটে তুলসীঘাট-ফলিমারী রাস্তা ধুলায় অন্ধকার; পথচারীসহ জনজীবন নার্ভিশ্বাস!

প্রতিবেদক
প্রতিদিনের বাংলাদেশ
ডিসেম্বর ১০, ২০২১ ৫:৩৩ অপরাহ্ণ
Link Copied!

গাইবান্ধা প্রতিনিধিঃ পরিবেশ আইন লংঘন করে ইট-ভাঁটার কাজের শুরুতেই কাঁকড়ার দাপটে গাইবান্ধা গোটা জেলার রাস্তাগুলি যেন ধুলায় অন্ধকার।

পথচারীসহ জনজীবনে নেমে এসেছে চরম নার্ভিশ্বাস। সেই সাথে সরকারের কোটি কোটি টাকা ব্যায়ে নির্মিত রাস্তাগুলি যেমন ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে অন্যদিকে আবাদি ও কৃষি জমি বিলুপ্তির আশংকা দেখা দিয়েছে।
সরোজমিনে দেখা যায়, কৃষিকাজে ব্যবহৃত অল্প সরকারী ভর্তুকি দিয়ে আমদানি করা হয় ট্রাক্টর। এর উল্টো চিত্র গ্রামবাংলায় এগুলো সড়ক মহাসড়কে দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন পরিবহন কাজে।

দীর্ঘদিন হতে এমন পরিস্থিতিতে এবং জটিলতায় প্রাণ যাচ্ছে সাধারণ মানুষ ও পথচারীর। যেখানে ফিটনেস গাড়ীগুলো বিভিন্ন চেকপোস্টে চেকিং হচ্ছে সেখানে এ ফিটনেস বিহীন ট্রাক্টরগুলো হুর মুর করে বিকট শব্দে, অদক্ষ চালক দ্বারা চালিত হচ্ছে দেখার যেনো কেউ নাই।

এগুলোকে আটকানো হয়না,নাই কোন প্রয়োজনীয় এবং কার্যকারী পদক্ষেপ এ অবৈধ যানগুলো কিভাবে চলে, কার ইশারায় চলে, কেনো থামছেনা সচেতন মহলের ভাবনায় পরিনত।

মাটির স্পটে গিয়ে দেখা যায়,গাইবান্ধা সদর উপজেলার সাহাপাড়া ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ডের নব–নির্বাচিত ইউপি সদস্য নুরুল ইসলামের ভেপু দিয়ে মাটি কাটার মহোৎসব। তিনি ফলিমারী মোড়ের পশ্চিম -দক্ষিন পার্শ্বে ও একই গ্রামের মওলার ভাঁটা সংলগ্ন এলাকায় ভেপু দ্বারা গভীর মাটি কর্তন করে ইট-ভাঁটায় বিক্রি করে আসছেন।

পার্শ্ববর্তী জমির মালিকদের অভিযোগ, অসাধু মাটি ব্যবসায়ীরা সর্বনাশা ভেপু দিয়ে আবাদি ও কৃষি জমি গভীর খনন করায় আমাদের কৃষি জমি গুলি হুমকীর মুখে। আর এলাকাবাসী বলছেন,কাঁকড়া দিয়ে মাটি বহনের ফলে শুধু রাস্তাঘাট নয় পুরো এলাকার বাড়ীঘর যেন ধুলায় ভরপুর। তা ছাড়া গত বছরের ন্যায় এ বারও প্রানহানীর আশংকা করছেন তারা। বিজ্ঞ মহলের প্রশ্ন,,,,ভেপু ও কাঁকড়ার বৈধ কোন রোড পারমিট আছে কি?যদি না থাকে তাহলে অবাধে আবাদি ও কৃষি জমি নিধন করে দাপটের সাথে শত কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত রাস্তা ক্ষতিগ্রস্তের জন্য দায়ী কে? তাদের বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা নিতে বাধাই বা কোথায়?
জিহাদ হক্কানী/গাইবান্ধা

আপনার মন্তব্য লিখুন