ঢাকাশুক্রবার , ৮ অক্টোবর ২০২১
  1. Covid-19
  2. অপরাধ ও আদালত
  3. অর্থনীতি
  4. আন্তর্জাতিক
  5. ইসলাম ডেস্ক
  6. কৃষি ও অর্থনীতি
  7. খেলাধুলা
  8. জাতীয়
  9. তথ্য-প্রযুক্তি
  10. দেশজুড়ে
  11. নির্বাচন
  12. বানিজ্য
  13. বিনোদন
  14. ভিডিও গ্যালারী
  15. মুক্ত মতামত ও বিবিধ কথা
আজকের সর্বশেষ সবখবর

গণধর্ষণের শিকার নবম শ্রেণির ছাত্রী!

প্রতিবেদক
প্রতিদিনের বাংলাদেশ
অক্টোবর ৮, ২০২১ ৬:৪৬ অপরাহ্ণ
Link Copied!

অপরাধ প্রতিবেদক।। টাঙ্গাইলের ঘাটাইলে গণধর্ষণের শিকার হয়েছে নবম শ্রেণির এক মাদরাসাছাত্রী। গত বুধবার (৬ অক্টোবর) রাতে ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার লক্ষিন্দর ইউনিয়নের মুরাইদ গ্রামে। এ ঘটনায় ওই ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে গতকাল বৃহস্পতিবার (৭ অক্টোবর) সন্ধ্যায় ঘাটাইল থানায় মামলা দায়ের করলে পুলিশ অভিযুক্ত মোস্তফা ও মোফাজ্জলকে গ্রেপ্তার করেছে।

মামলার বিবরণে জানা যায়, ধর্ষণের শিকার ওই ছাত্রীর বাবা দুই বিয়ে করেছেন। দ্বিতীয় ঘরের বড় মেয়ে সে। মেয়েটি চাকরির উদ্দেশে গাজীপুরে তার আত্মীয়ের বাসায় যায়। মোবাইল ফোনে পরিচয় ছিল মোস্তফা (২৫) নামে এক যুবকের সঙ্গে। মোস্তফার বাড়ি মেয়েটির পাশের গ্রাম ঘাটাইল উপজেলার মুরাইদ। পরিচয়ের সুবাদে গত বৃহস্পতিবার দুপুরে মেয়েটিকে ফোন করেন মোস্তফা।

চাকরি দেওয়ার প্রলোভন দেখায়। কৌশলে ডেকে নিয়ে আসে কালিয়াকৈরের চন্দ্রা বাসস্ট্যান্ডে। সেখান থেকে মোস্তফা তাকে নিজ গ্রাম মুরাইদে নিয়ে আসে। নিজ বাড়িতে না নিয়ে মেয়েটিকে নিয়ে ওঠেন পূর্বপরিচিত মফিজ উদ্দিন মোড়লের ছেলে মোফাজ্জল হোসেনের (৩৫) বাড়িতে। রাতে ঘুমানোর জন্য টিনশেড একটি ঘরে ব্যবস্থা করে দেন মোফাজ্জল। রাতটুকু ওই বাড়িতেই কাটাতে বলে মোস্তফা। পরের দিন পরিচিত আত্মীয়ের মাধ্যমে চাকরির দেওয়ার ব্যবস্থা করা হবে, এই বলে ঘুমাতে যেতে বলে মেয়েটিকে। চাকুরির আশায় সরল বিশ্বাসে ঘুমাতে যায় সে। পরে রাত প্রায় ১১টার দিকে ওই ঘরে প্রবেশ করে মোস্তফা ও মোফাজ্জল। মুখ চেপে ধরে তারা দু’জন পালাক্রমে ধর্ষণ করে। একপর্যায় মেয়েটি শারীরিকভাবে অসুস্থ হয়ে পড়ে। তার চিৎকারে আশেপাশের স্থানীয়রা এগিয়ে এসে মোস্তফা ও মোফাজ্জলকে আটক করে পুলিশে খবর দেন। পুলিশ এসে মেয়েটিকে উদ্ধার করে এবং অভিযুক্ত দু’জনকে থানায় নিয়ে যায়।

ধর্ষণের শিকার ওই ছাত্রী জানিয়েছেন, সংসারে স্বচ্ছলতা আনতে পড়ালেখার পাশাপাশি সে চাকরি করতে চেয়েছিলেন।

এ বিষয়ে ঘাটাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আজহারুল ইসলাম সরকার পিপিএম বলেন, থানায় মামলা হয়েছে, আসামিদের গ্রেপ্তার করে শুক্রবার (৮ আক্টোবর) আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। মেয়েটিকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

আপনার মন্তব্য লিখুন