ঢাকাবুধবার , ৭ এপ্রিল ২০২১
  1. Covid-19
  2. অপরাধ ও আদালত
  3. অর্থনীতি
  4. আন্তর্জাতিক
  5. ইসলাম ডেস্ক
  6. কৃষি ও অর্থনীতি
  7. খেলাধুলা
  8. জাতীয়
  9. তথ্য-প্রযুক্তি
  10. দেশজুড়ে
  11. নির্বাচন
  12. বানিজ্য
  13. বিনোদন
  14. ভিডিও গ্যালারী
  15. মুক্ত মতামত ও বিবিধ কথা
আজকের সর্বশেষ সবখবর

জার্মানিতে চিকিৎসকদের চেম্বারেই মিলবে করোনার টিকা

প্রতিবেদক
প্রতিদিনের বাংলাদেশ
এপ্রিল ৭, ২০২১ ১:২৮ অপরাহ্ণ
Link Copied!

আন্তর্জাতিক প্রতিবেদক | জার্মানিতে সরকারি টিকাদান কেন্দ্রগুলো ছাড়াও চলতি সপ্তাহ থেকে সাধারণ চিকিৎসকদের চেম্বারেই করোনার টিকা দেয়া শুরু করতে যাচ্ছে দেশটির স্বাস্থ্য বিভাগ। তবে সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতির মধ্যেই চলমান লকডাউনে শিথিলতা আনার পরিকল্পনা করছে দেশটির জারল্যান্ড অঙ্গরাজ্য।

জার্মানিতে অব্যাহত টিকা প্রদান কার্যক্রমে গতি আনতে চলতি সপ্তাহেই সাধারণ চিকিৎসকদের চেম্বারে টিকা নিতে পারবেন দেশটির সাধারণ নাগরিকরা।

দেশটির স্বাস্থ্য বিভাগ জানিয়েছে, টিকা কার্যক্রম পরিচালনা করতে কমপক্ষে প্রতি সপ্তাহে ২৬ ডোজ করে টিকা পাবেন দেশটির প্রায় ৩৫ হাজার সাধারণ চিকিৎসক। যদিও এ সংখ্যা প্রয়োজনের তুলনায় অনেক কম বল মনে করছেন টিকা গ্রহণে আগ্রহীরা।

এক নাগরিক জানান, আমি মনে করি প্রতি সপ্তাহে ডাক্তারদের চেম্বারে ২৬ ডোজ প্রয়োজনের তুলনায় খুবই কম, এমনও হতে পারে যেসব রোগীর আগে টিকা পাওয়া দরকার, সে নাও পেতে পারে। এক্ষেত্রে সঠিক রোগী খুঁজে বের করতে ডাক্তারদের বেগ পেতে হতে পারে।

এদিকে ব্রাজিল, দক্ষিণ আফ্রিকা ও ব্রিটেনে করোনার নতুন ধরনের সংক্রমণের মধ্যেই জার্মানিতে চলমান লকডাউনে আরো কড়াকড়ি দেয়ার বিষয়ে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছে দেশটির ১৬ অঙ্গরাজ্যের মিনিস্টার প্রেসিডেন্টরা।
তবে এর মধ্যেই, মঙ্গলবার থেকে পাইলট প্রকল্পের অংশ হিসেবে প্রতিবেশী ফ্রান্সের সীমান্তবর্তী অঙ্গরাজ্য জারলান্ড অন্যপথে হাঁটছে।
এ অঙ্গরাজ্যে থিয়েটার, কনসার্ট, সিনেমা বা শরীর চর্চা কেন্দ্র খুলে দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে স্থানীয় প্রশাসন। তবে এক্ষেত্রে অঙ্গরাজ্যটির নাগরিকদের দেখাতে হবে ২৪ ঘণ্টার করোনা নেগেটিভ সার্টিফিকেট।

এক নাগরিক জানান জারলান্ড প্রশাসনের সিদ্ধান্তকে আমি স্বাগত জানাই। আমি মনে করি, করোনা আছে কিন্তু এ নিয়ে এত না ভয় না পেয়ে আমাদেরকে সতর্ক হতে হবে। টিকা নেয়া, না নেয়ার বিষয়টি একান্তই নাগরিকদের ব্যক্তিগত সিদ্ধান্ত। এটি চাপিয়ে দেয়ার কিছু নেই।

এই অবস্থায় জার্মান সংক্রমণ বিশেষজ্ঞরা বলছেন, শিথিলতা নয় বরং রূপ বদলানো করোনাকে রুখে দিতে কমপক্ষে ২ থেকে তিন সপ্তাহের কঠোর লকডাউনের কোনো বিকল্প নেই।

আপনার মন্তব্য লিখুন