ঢাকাশুক্রবার , ২৯ অক্টোবর ২০২১
  1. Covid-19
  2. অপরাধ ও আদালত
  3. অর্থনীতি
  4. আন্তর্জাতিক
  5. ইসলাম ডেস্ক
  6. কৃষি ও অর্থনীতি
  7. খেলাধুলা
  8. জাতীয়
  9. তথ্য-প্রযুক্তি
  10. দেশজুড়ে
  11. নির্বাচন
  12. বানিজ্য
  13. বিনোদন
  14. ভিডিও গ্যালারী
  15. মুক্ত মতামত ও বিবিধ কথা
আজকের সর্বশেষ সবখবর

ধীর পায়ে শীত নামছে উত্তরাঞ্চলে: নির্বাচনকে ঘিরে জমে উঠেছে শীতবস্ত্রের বেচাকেনা!

প্রতিবেদক
প্রতিদিনের বাংলাদেশ
অক্টোবর ২৯, ২০২১ ৫:২৫ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

রাশেদুল ইসলাম রাশেদ,স্টাফ রিপোর্টারঃ শরতের বিদায়ের পর চলছে হেমন্তকাল। উত্তরাঞ্চলের রংপুর,গাইবান্ধা,কুড়িগ্রাম ও লালমনিরহাটসহ রংপুর বিভাগের কিছু জেলা ও উপজেলায় সাত সকালে বয়ে আসা হিমেল হাওয়ায় টের পাওয়া যাচ্ছে ধীর পায়ে শীত নামছে প্রকৃতিতে। সাদা মেঘের ভেলা ভাসিয়ে শীতের আগমনী বার্তায় ঘন কুয়াশার চাদরে ঢাকা পড়ছে ভোরের বিস্তীর্ণ ফসলের মাঠ, রাস্তাঘাট ও গ্রামীণ জনপদ।

অক্টোবরের মাঝামাঝি সময় থেকে প্রকৃতিতে হাল্কা শীতের উপস্থিতি পরিলক্ষিত হলেও ভোরের কুয়াশার চাদরে ঢাকা রাস্তাঘাট ও গ্রামীণ জনপদই যেনো জানান দিলো হিমালয়ের পাদদেশে অবস্থিত উত্তরের সীমান্ত ঘেঁষা জেলা লালমনিরহাট, কুড়িগ্রামসহ আশ পাশের গাইবান্ধা ও রংপুরে শীতের আগমনী বার্তা। ক্রমেই কমছে বাতাসের আর্দ্রতা আর বাড়ছে হিমেল ঠাণ্ডা পরশ। বর্তমানে দিনের বেলায় গরম ও রাতের বেলা শীত অনুভূত হচ্ছে। 

কথা হয় লালমনিরহাট সদরের হাড়িঙাঙ্গা এলাকার আহনাফ  (৯), মাহিন (৬) ও  আয়শা সিদ্দিকা (৭) এর সাথে।  তারা জানান, ভোরে আমরা মসজিদে যাই হুজুরের কাছে আরবী পড়তে। শীতের পরিমাণ দিন দিন একটু বেশী হচ্ছে। এছাড়াও সকালে পানিতে অযু করতে ঠান্ডা লাগে।

লালমনিরহাট জেলার পৌর শহরের স্থানীয়রা জানান, দিনের বেলা বেশ গরম থাকলেও সন্ধ্যা নামার পর থেকেই কুয়াশা পড়তে শুরু করে। মধ্যরাত থেকে বৃষ্টির মত টুপটুপ করে কুয়াশা ঝরতে থাকে। বিশেষ করে প্রকৃতিতে থাকা ছোট ছোট গাছের লতা পাতা সহ মাকড়সার জালেও শিশির লক্ষ্য করা যাচ্ছে।

রংপুর বিভাগের পাইকারি পোশাকপল্লীতে আগাম জমে উঠেছে শীতবস্ত্রের বেচাকেনা। এরই মধ্যে এ বিভাগের বিভিন্ন জেলা থেকে পাইকারি ও খুচরা ব্যবসায়ীরা এসব বস্ত্র কেনার জন্য আসতে শুরু করেছেন। বিক্রিও হচ্ছে দেদার।

ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন, চলতি বছরের শীতে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের তৃতীয় ধাপকে ঘিরে এবার ব্যবসা ভালো হবে। কারণ গ্রাম থেকে শহরে নিজ নিজ দলের প্রার্থীর জন্য দিনরাত নির্বাচনী প্রচারণায় ব্যস্ত থাকবে অধিকাংশ মানুষ। আর বেশিরভাগ সময় ঘরের বাইরে থাকতে হবে।

আবার নির্বাচনের প্রার্থীরা ভোটারদের মন পেতে শীতবস্ত্র বিতরণ বাড়িয়ে দেবেন। তাই গরম কাপড়ের কদর বেড়ে যাবে। সব মিলিয়ে বিক্রিও ভালো হবে বলে আশা করছেন তারা।

আপনার মন্তব্য লিখুন