ঢাকাসোমবার , ২৪ মে ২০২১
  1. Covid-19
  2. অপরাধ ও আদালত
  3. অর্থনীতি
  4. আন্তর্জাতিক
  5. ইসলাম ডেস্ক
  6. কৃষি ও অর্থনীতি
  7. খেলাধুলা
  8. জাতীয়
  9. তথ্য-প্রযুক্তি
  10. দেশজুড়ে
  11. নির্বাচন
  12. বানিজ্য
  13. বিনোদন
  14. ভিডিও গ্যালারী
  15. মুক্ত মতামত ও বিবিধ কথা
আজকের সর্বশেষ সবখবর

নাগেশ্বরীতে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে ১২ টি দোকান ও বসতবাড়ি ভস্মীভূত

প্রতিবেদক
প্রতিদিনের বাংলাদেশ
মে ২৪, ২০২১ ১১:০৬ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

মুহাম্মদ রাসেল উদ্দিন, কুড়িগ্রামঃ কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরী উপজেলার নাখারগঞ্জ বাজারে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে ১২টি দোকান ও বাড়িঘর আগুনে ভস্মীভূত হয়ে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারনা করা হচ্ছে, অন্তত কোটি টাকার উপরে ক্ষতি হয়েছে বলে জানিয়েছেন ক্ষতিগ্রস্থরা।

রবিবার (২৩ মে) বিকেলে একটি জুয়েলারি দোকান থেকে আগুনের সুত্রপাত হয় বলে ধারণা করা হচ্ছে।

স্থানীয়রা জানান, বিকেলে মোরশেদ জুয়েলার্স থেকে আগুন দেখা যায়। পরে আশপাশের দোকানে আগুন চলে যায়। নাগেশ্বরী ফায়ার সার্ভিসকে খবর দিলে তারা প্রায় ৩ ঘন্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। এ সময় থানা পুলিশ এসে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন, সেখানে মানুষের ভীড় দেখা গেছে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বাজারের কাস্টম মার্কেটের আরাফাত ট্রেডার্স নামের কীটনাশক ও সারের দোকান, ওবায়দুল ভেটরেনারি, মোরশেদ জুয়েলার্স, পূর্নিমা জুয়েলার্সসহ গালামাল, বিকাশের ১২টি দোকান পুড়ে যায়। আশপাশের অনেক দোকানের মালামাল বের করতে নষ্ট হয়ে যায়। মার্কেটের মালিক মোস্তাফিজার রহমানের বাড়ির সবকিছু পুড়ে ছাই হয়ে গেছে।

ক্ষতিগ্রস্থ কাস্টম মার্কেটের মালিক মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, বাড়িসহ মার্কেটের প্রায় ১২টি দোকানসহ মালামাল পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। সবমিলে কোটি টাকার বেশি ক্ষতি হয়েছে। আরাফাত ট্রেডার্সের মালিক আব্দুর রশিদ জানান, কিস্তির টাকায় দোকানের মালামাল করেছেন। ৮ লাখ টাকার মালামাল এনে দোকানে রাখার পরপরই সব পুড়ে এখন তিনি নিঃস্ব। ওবায়দুল ভেটেরেনারীর মালিক ওবায়দুল মিয়া জানান, তাদের দোকানের ক্ষতি হয়েছে প্রায় লক্ষাধিক টাকার মালামাল।

মোরশেদ জুয়েলার্সের মালিক আব্দুল লতিফ জানায়, তার ৪ মেয়ে ও ১ ছেলে নিয়ে তাদের সংসার। বড় মেয়ের বিয়ে হয়েছে। তার ছোট মেয়ে লাবনী আক্তার রংপুর প্রাইম মেডিকেলে ফাইনাল ইয়ারে এবং আরেক মেয়ে রোকসানা রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ৩য় বর্ষে পড়েন। ছোট মেয়ে পড়েন নবম শ্রেণিতে। এই দোকানের আয় থেকে চলে তাদের সংসার ও ছেলে মেয়েদের পড়াশোনার খরচ। এখন তিনি নিঃস্ব হয়েছেন বলেই কেঁদে ফেলেন তারা।

স্থানীয় আইটি পাঠশালার চেয়ারম্যান কুমার বিশ্বজিৎ বর্মণ জানান, ক্ষতিগ্রস্থরা সবাই এতোটাই নি:স্ব হলো যে তারা দাঁড়ানোর মত শক্তি খুজে পাবেনা। মোরশেদ জুয়েলার্সের মালিক আব্দুল লতিফের দুই মেয়ে একজন মেডিকেলে একজন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ে। দোকান দিয়ে তাদের পড়ালেখা চলতো। এখন পড়ালেখা চলবে কি করে আরাফাত ট্রেডার্সের আব্দুর রশিদ অনেক ঋণে রয়েছেন। এখন তিনি কিস্তি দিতে পারবেন না।

এ প্রসঙ্গে রামখানা ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল আলিম জানান, বিষয়টি ইউএনও ও উপজেলা চেয়ারম্যান মহোদয়কে জানানো হয়েছে। এখানে ক্ষয়ক্ষতির পরিমান নির্ধারণ করা হচ্ছে।

আপনার মন্তব্য লিখুন