ঢাকাবুধবার , ৩১ আগস্ট ২০২২
  1. Covid-19
  2. অপরাধ ও আদালত
  3. অর্থনীতি
  4. আন্তর্জাতিক
  5. ইসলাম ডেস্ক
  6. কৃষি ও অর্থনীতি
  7. খেলাধুলা
  8. জাতীয়
  9. তথ্য-প্রযুক্তি
  10. দেশজুড়ে
  11. নির্বাচন
  12. বানিজ্য
  13. বিনোদন
  14. ভিডিও গ্যালারী
  15. মুক্ত মতামত ও বিবিধ কথা
আজকের সর্বশেষ সবখবর

পঞ্চগড়ে যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা কর্মচারীর বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ

প্রতিবেদক
প্রতিদিনের বাংলাদেশ
আগস্ট ৩১, ২০২২ ১:৩৩ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

মনজু হোসেন স্টাফ রিপোর্টারঃ পঞ্চগড় যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের কর্মকর্তা কর্মচারীদের বিরুদ্ধে দুর্নীতি ও অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে।ওয়েল্ডিং বিষয়ক বিশেষ প্রশিক্ষণ ট্রেডের ছাত্রদের টাকা নামে বেনামে উত্তোলন। ছাত্র-ছাত্রীদের আবাসিক হোস্টেলে অবৈধভাবে দীর্ঘদিন ধরে কর্মকর্তা কর্মচারীদের বসবাস।বিষয়টি সবাই জেনেও অজানা কারনে কোন পদক্ষেপ নেয়নি দীর্ঘদিনেও। তবে উপ পরিচালক এবিষয়ে কোন মন্তব্য করতে রাজি হননি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া।

সূত্র জানায়,২০২১-২২ অর্থ বছরে ১ লাখ ৫৮ হাজার ৫০০ টাকা বরাদ্দে ওয়েল্ডিং বিষয়ক বিশেষ প্রশিক্ষণ ট্রেডের ৩০ জন যুবককে ১জুন থেকে ৩০ জুন পর্যন্ত প্রশিক্ষণ দেয়ার কথা। যথারীতি ৩০ জন যুবক ভর্তি নিয়ে প্রশিক্ষণ শুরু হয়।কিন্তু ক্লাস করতে ১০-১২জন আসলেও হাজিরা খাতায় সাক্ষর করে চলে যান তারা।তবে ৪-৫ জন প্রশিক্ষণ করেছেন প্রায় ১৫ দিন, পরে আর কেউ যাননি সেখানে । প্রশিক্ষনার্থীদের প্রত্যেককে ২ হাজার২০০ টাকা দেয়ার কথা থাকলেও কেউ পেয়েছেন ১হাজার কেউ পেয়েছেন ৩ হাজার।আবার কারো নাম তালিকায় থাকলেও ভুয়া মোবাইল নম্বর দিয়ে টাকা তুলার অভিযোগ রয়েছে প্রশিক্ষক আবু সায়েম বসুনিয়ার বিরুদ্ধে। এমনকি ক্লাস না করেও ভাগ করে নেয়া হয়েছে বরাদ্দের টাকা। এবিষয়ে প্রশিক্ষক আবু সায়েম বসুনিয়া মন্তব্য করতে নারাজ।
প্রশিক্ষনার্থী আহাদ আলী জানান, আমি প্রতিদিন ক্লাস করতে পারিনি বিধায় আমাকে কোন টাকা দেননি।সুজন রায় বলেন, তিনি ৩ হাজার টাকা পেয়েছেন। লিখনের ফোন নম্বরটি রাজশাহীর কোন এক ব্যক্তির। নাজিমের ফোন নম্বর টি নওগাঁর তারা চিনেন না এদের।

এদিকে প্রশিক্ষনার্থী ছাত্র-ছাত্রীদের আবাসিক হোস্টেলের নিচতলা দখল করে বসবাস করছে অফিসের ক্যাশিয়ার ইয়াসিন আলী, কম্পিউটার অপারেটর মামুন, এম এল এস এস সবুজ মিয়াসহ আটজন। অভিযোগ রয়েছে তারা দীর্ঘ ১৫-২০ বছর ধরে বসবাস করছে। ব্যবহার করছে টেলিভিশন, ফ্রিজ, রাইস কুকারসহ একাধিক ইলেক্ট্রনিক ডিভাইস।এতে ২০২১-২২ অর্থ বছরে বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করতে হয়েছে ১ লাখ ১৯ হাজার ১৫০ টাকা। যা সবটাই সরকারের রাজস্ব খাত থেকে বহন করা হয়েছে।ক্যাশিয়ার ইয়াসিন আলী জানান, স্যারের অনুমতি নিয়েই আমরা বসবাস করছি। তবে বিষয়টি দেখার আশ্বাস দেন যুব উন্নয়ন প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের ডেপুটি কো-অর্ডিনেটর গোলাম মোস্তফা সরকার।
এ বিষয়ে পঞ্চগড় যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মো:মকছেদুল কবির ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের অনুমতি ব্যতিত কোন বক্তব্য দিতে রাজি হননি

আপনার মন্তব্য লিখুন