ঢাকারবিবার , ২২ জানুয়ারি ২০২৩
  1. Covid-19
  2. অপরাধ ও আদালত
  3. অর্থনীতি
  4. আন্তর্জাতিক
  5. ইসলাম ডেস্ক
  6. কৃষি ও অর্থনীতি
  7. খেলাধুলা
  8. জাতীয়
  9. তথ্য-প্রযুক্তি
  10. দেশজুড়ে
  11. নির্বাচন
  12. বানিজ্য
  13. বিনোদন
  14. ভিডিও গ্যালারী
  15. মুক্ত মতামত ও বিবিধ কথা
আজকের সর্বশেষ সবখবর

পঞ্চগড়ে ৭ টি বিরল প্রজাতির সাপ উদ্ধার

প্রতিবেদক
প্রতিদিনের বাংলাদেশ
জানুয়ারি ২২, ২০২৩ ৪:৩৬ অপরাহ্ণ
Link Copied!

মনজু হোসেন,স্টাফ রিপোর্টারঃ পঞ্চগড়ে ৭ টি বিরল প্রজাতির সাপ উদ্ধার করা হয়েছে। লাল প্রবাল রং আর নিরীহ গোছের এই সাপটির নাম লাল কোরাল কুকরি। বাংলাদেশে প্রথম দেখা মিলল এ সাপের। পৃথিবীর নানা দেশে এ সাপ দেখা জায় বাংলাদেশের শুধু পঞ্চগড় জেলায় এর কিছুদিন আগেউ দেখা গিয়েছিল।


প্রকৃতির কোলে নিরাপদে ফিরে গেছে ৬ ছানাসহ মা রেড কোরাল কুকরি বা কমলাবতী সাপ। ‘সাপ বন্ধু’ বলে পরিচিত পঞ্চগড়ের শহিদুল ইসলাম তাদের উদ্ধার করে নিরাপদ প্রকৃতিতে অবমুক্ত করেন।

শহিদুল ইসলাম বলেন, শুধু অসচেতনতার জন্য মানুষ সাপ দেখামাত্রই হত্যা করতে উদ্যত হয়। আসলে সাপ আমাদের শত্রু নয়, বন্ধু। এখন তাদের আবাসস্থল হুমকিতে পড়েছে। ঝাড়-জঙ্গল কেটে জমি তৈরি করা হচ্ছে।

শনিবার (২১ জানুয়ারি) বিকেলে পঞ্চগড়ের আটোয়ারী উপজেলার মির্জাপুর ইউনিয়নের সরদারপাড়া এলাকা থেকে দেশের বিরল প্রজাতির রেড কোরাল কুকরি সাপের ছয়টি বাচ্চা ও তাদের মাকে উদ্ধার করা হয়। স্থানীয়রা জানান, ওই এলাকার খলিল মেম্বার বাড়ির পাশে ভেকু দিয়ে বাঁশবাগান কেটে পুকুর খনন করছিলেন।

ভেকু দিয়ে কাটা মাটি ট্রাক্টর দিয়ে অন্যত্র নেওয়া হচ্ছিল। এ সময় বিরল প্রজাতির দুটি রেড কোরাল কুকরি বের হলে স্থানীয় কয়েকজন সাপ দুটি মেরে ফেলেন। পরে আরও সাপ দেখতে পেয়ে ভেকু চালক বাংলাদেশ বন্য প্রাণী ও সাপ উদ্ধারকারী দলের সভাপতি শহিদুল ইসলামকে অবহিত করেন। খবর পেয়ে তিনি দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে একটি মা রেড কোরাল কুকরি ও তার ছয় ছানাকে উদ্ধার করে নিরাপদ প্রকৃতিতে অবমুক্ত করেন। এ সময় সাপ হত্যা না করতে স্থানীয়দের মাঝে সচেতনতামূলক প্রচারণা চালান তিনি।

রেড কোরাল কুকরি ১০৩তম দেশীয় সাপ হিসেবে স্বীকৃতি পায়। সাপটি কমলাবতী নামেও পরিচিত। পরে এই প্রজাতির আরো কয়েকটি সাপ উদ্ধার করেন শহিদুল

তাই তারা নিরাপদ আশ্রয়ের জন্য বের হচ্ছে। তাদের হত্যা না করে প্রকৃতিতে ছেড়ে দেওয়ার অনুরোধ জানান তিনি। শহিদুল সাপকে তার নিরাপদ আবাসে ফিরিয়ে দেওয়ার মধ্যেই বড় আনন্দ তার।

উল্লেখ্য, ২০২১ সালের ৮ ফেব্রুয়ারিতে বাংলাদেশে প্রথম এই সাপটির দেখা মেলে উত্তরের জেলা পঞ্চগড়ে। জেলার বোদা উপজেলার ঝলই শালশিরি ইউনিয়নের কালিয়াগঞ্জ এলাকা থেকে ভেকুর আঘাতে আহত ওই রেড কোরাল কুকরি সাপটি উদ্ধার করেন শহিদুল ইসলাম। প্রথমবার দেশে বিরল প্রজাতির এই সাপের দেখা মেলায় বেশ আলোচনার সৃষ্টি হয়। সাপটি নিয়ে গবেষণাও করা হয়।

শহিদুল ইসলাম জানান, উজ্জ্বল কমলা ও লাল প্রবাল রঙের সাপটি অত্যন্ত মোহনীয়। লাল সাপটি মৃদু বিষধারী ও অত্যন্ত নিরীহ। এটি পৃথিবীর দুর্লভ সাপের একটি। পৃথিবীতে হিমালয়ের পাদদেশ দক্ষিণে ৫৫ আর পূর্ব-পশ্চিমে ৭০ কিলোমিটার এলাকায় দেখা যায়। সাপটি নিশাচর এবং বেশিরভাগ সময় মাটির নিচেই থাকে। সম্ভবত মাটির নিচে কেঁচো ও লার্ভা পিঁপড়ার ডিম ও উইপোকার ডিম খেয়ে জীবন ধারণ করে। নরম মাটি পেলে মাটি খুঁড়ে ভেতরে চলে যাওয়ার প্রবণতা রয়েছে। মাটির ভেতরে থাকার জন্য রোসট্রাল স্কেল ব্যবহার করে সাপটি। রোসট্রাল স্কেল হলো সাপের মুখের সম্মুখভাগে অবস্থিত অঙ্গবিশেষ। তিনি জানান, সর্বপ্রথম এই সাপের দেখা মেলে ১৯৩৬ সালে ভারতের উত্তর প্রদেশের Kheri Division-এ।

আপনার মন্তব্য লিখুন