ঢাকাশনিবার , ১৮ ডিসেম্বর ২০২১
  1. Covid-19
  2. অপরাধ ও আদালত
  3. অর্থনীতি
  4. আন্তর্জাতিক
  5. ইসলাম ডেস্ক
  6. কৃষি ও অর্থনীতি
  7. খেলাধুলা
  8. জাতীয়
  9. তথ্য-প্রযুক্তি
  10. দেশজুড়ে
  11. নির্বাচন
  12. বানিজ্য
  13. বিনোদন
  14. ভিডিও গ্যালারী
  15. মুক্ত মতামত ও বিবিধ কথা
আজকের সর্বশেষ সবখবর

পরকীয়ায় আসক্ত: ময়মনসিংহ থেকে ফরিদপুরে এসে লাশ হলেন সুফিয়া!

প্রতিবেদক
প্রতিদিনের বাংলাদেশ
ডিসেম্বর ১৮, ২০২১ ২:২১ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

রাশেদুল হাসান কাজল,ফরিদপুরঃ পরকীয়া প্রেমের টানে ময়মনসিংহ থেকে ফরিদপুরে এসে খুন হয়েছেন সুফিয়া খাতুন (৩১ ) নামের এক নারী। গত রবিবার (১২ ডিসেম্বর) দুপুরে ফরিদপুর সদরের মাচ্চর ইউনিয়নের খলিলপুর এলাকার একটি খাল থেকে অজ্ঞাত পরিচয় হিসেবে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। পরে পুলিশি তদন্তে সুফিয়ার পরিচয় শনাক্ত হয়।

বুধবার (১৫ ডিসেম্বর) রাতে এ হত্যাকাণ্ডে জড়িত সন্দেহে রিপন মল্লিক নামে একজনকে গাজীপুর থেকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

শুক্রবার সকালে ফরিদপুর কোতোয়ালি থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এম এ জলিল ঢাকা ট্রিবিউনকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

সুফিয়া বেগম ময়মনসিংহ জেলার নান্দাইল উপজেলার কচুরি গ্রামের নুরুল ইসলামের মেয়ে। ১২ বছর আগে চাচাতো ভাই মো. সুমন মিয়ার (৩৭) সঙ্গে তার বিয়ে হয়। তাদের আট বছর বয়সী একটি ছেলে সন্তান রয়েছে।

কোতোয়ালি থানার ওসি এম এ জলিল জানান, এক বছর আগে ইলেকট্রিক মিস্ত্রি ফরিদপুর সদরের মাচ্চর ইউনিয়নের শিবরামপুর ছোট বটতলা এলাকার বাসিন্দা রিপন মল্লিকের (১৯) সঙ্গে পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়েন সুফিয়া। এ ঘটনা জানাজানি হওয়ার পর সুফিয়াকে তালাক দেন সুমন মিয়া।

এরপর প্রেমিক রিপনকে বিয়ে করার জন্য চাপ দিচ্ছেলেন ওই নারী। কিন্তু রিপন নিজের বয়স কম হওয়ার অজুহাত দেখিয়ে এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছিলেন।

এক পর্যায়ে রিপন গত শনিবার বিয়ে করার কথা বলে সুফিয়াকে ফরিদপুরে নিয়ে আসেন। সুফিয়া ফরিদপুরের শিবরামপুরে আসার পর ওই রাতে রিপন তাকে ওই খালপাড়ের একটি মেহগনি বাগানে নিয়ে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে মরদেহটি পাশের খালের পানিতে ফেলে দেয়।

তিনি আরও জানান, মরদেহ উদ্ধারের পর পিবিআই ও সিআইডির মাধ্যমে পরিচয় শনাক্ত করা হয়। মঙ্গলবার নিহত সুফিয়ার ভাই রফিকুল ইসলাম বাদী হয়ে থানায় হত্যা মামলা করেন। মামলার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত রিপন মল্লিককে গাজীপুরের গাছা এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ফরিদপুর কোতোয়ালি থানার উপপরিদর্শক (এসআই) প্রসাদ কুমার চাকী জানান, বৃহস্পতিবার বিকেলে রিপন মল্লিকের সাত দিনের রিমান্ড চেয়ে তাকে ফরিদপুরের এক নম্বর আমলি আদালতে সোপর্দ করা হয়। আদালতের বিচারক অরুপ বসাক এক দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

আপনার মন্তব্য লিখুন