ঢাকাশুক্রবার , ২৭ আগস্ট ২০২১
  1. Covid-19
  2. অপরাধ ও আদালত
  3. অর্থনীতি
  4. আন্তর্জাতিক
  5. ইসলাম ডেস্ক
  6. কৃষি ও অর্থনীতি
  7. খেলাধুলা
  8. জাতীয়
  9. তথ্য-প্রযুক্তি
  10. দেশজুড়ে
  11. নির্বাচন
  12. বানিজ্য
  13. বিনোদন
  14. ভিডিও গ্যালারী
  15. মুক্ত মতামত ও বিবিধ কথা
আজকের সর্বশেষ সবখবর

মাশরাফিকে আল্টিমেটাম দিলেন ই-অরেঞ্জের গ্রাহকরা

প্রতিবেদক
প্রতিদিনের বাংলাদেশ
আগস্ট ২৭, ২০২১ ৭:০৬ অপরাহ্ণ
Link Copied!

বিশেষ প্রতিনিধি

মোটরসাইকেল বা সমমূল্যের রিফান্ড দাবিতে ২০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সময় বেধে দিয়েছে ই-কমার্স প্ল্যাটফর্ম ই-অরেঞ্জের গ্রাহকরা। এরমধ্যে গ্রাহকদের টাকা ফেরত ও পণ্য সরবরাহ করতে যদি কোনো ধরনের সঠিক সিদ্ধান্ত না আসে তাহলে সকল গ্রাহক রাজপথে নেমে অনশন করবে এবং প্রতিষ্ঠানটির সাবেক ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজার বাড়ি ঘেরাও করবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন গ্রাহকরা।

শুক্রবার (২৭ আগস্ট) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ই-অরেঞ্জ গ্রাহকদের আয়োজিত মানববন্ধন থেকে এই হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়। এসময় কয়েক’শ গ্রাহক প্রেসক্লাবের সামনের সড়কে মানববন্ধনে অংশ নেন।

এসময় তারা বলেন, আমাদের পিঠ ঠেকে গেছে দেয়ালে। ধৈর্যের বাঁধ ভেঙে গেছে। আমরা আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হয়ে ২০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত দেখব তারা কি সিদ্ধান্ত দেয়। যদি এই সময়ের মধ্যে কোনো সিদ্ধান্ত না দেয় তাহলে আমরা অনশন করব।

গ্রাহকরা বলেন, মাশরাফি ভাই ই-অরেঞ্জের ব্রান্ড অ্যাম্বাসেডর ছিলেন। তাকে প্রতিষ্ঠানটির সাথে যুক্ত হতে দেখে আমরা টাকা ইনভেস্ট করে আজ পথে বসেছি। দ্রুত আমরা পণ্য বা টাকা ফেরত চাই, নইলে মাশরাফি ভাইয়ের বাড়ি ঘেরাও করবো।

তারা আরও বলেন, ক্রিকেটার মাশরাফি ভাই যেদিন থেকে এই প্রতিষ্ঠানের ব্রান্ড অ্যাম্বাসেডর হিসেবে এসেছেন তখন থেকে এই প্রতিষ্ঠানের অর্ডার ১০ গুণ বেড়ে গেছে। এখন তিনি বলছেন, তার সঙ্গে চুক্তি জুলাই মাসে শেষ হয়েছে। আপনারা লক্ষ্য করলে দেখবেন, উনি চুক্তিবদ্ধ হওয়ার পরে মে মাস থেকে এখন পর্যন্ত বাইকগুলোর ডেলিভারি হয়নি। তাহলে ওই দায়টুকু তো তার।

ফাহিম নামের এক গ্রাহক বলেন, ‘আমাদের প্রত্যেকে লাখ লাখ টাকা বিনিয়োগ করেছি। এগুলো কীভাবে ফেরত পাব তা নিশ্চিতভাবে বলা হচ্ছে না। আমি ই-অরেঞ্জের একজন ভুক্তভোগী গ্রাহক। ই-অরেঞ্জ ডট শপ লাখো গ্রাহকের অর্থ নিয়ে পণ্য না দিয়ে গ্রাহকদের সঙ্গে প্রতারণা করে যাচ্ছে।’

তারা হুঁশিয়ারি করে বলেন, আমরা আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হয়ে ২০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত অপেক্ষা করব। এরমধ্যে সঠিক সমাধানে না এলে আমরা কঠোর আন্দোলনে যাব।

আপনার মন্তব্য লিখুন