ঢাকাশুক্রবার , ৩ জুন ২০২২
  1. Covid-19
  2. অপরাধ ও আদালত
  3. অর্থনীতি
  4. আন্তর্জাতিক
  5. ইসলাম ডেস্ক
  6. কৃষি ও অর্থনীতি
  7. খেলাধুলা
  8. জাতীয়
  9. তথ্য-প্রযুক্তি
  10. দেশজুড়ে
  11. নির্বাচন
  12. বানিজ্য
  13. বিনোদন
  14. ভিডিও গ্যালারী
  15. মুক্ত মতামত ও বিবিধ কথা
আজকের সর্বশেষ সবখবর

রেলের টিকিট কালোবাজারে; নেপথ্যে ডিসিও’র ড্রাইভার!

প্রতিবেদক
প্রতিদিনের বাংলাদেশ
জুন ৩, ২০২২ ৭:২৫ অপরাহ্ণ
Link Copied!

আশরাফুল হক, লালমনিরহাটঃ নিরাপদ ও আরামদায়ক ভ্রমণের অন্যতম মাধ্যম হলো ট্রেন। তবে অস্বস্তির বিষয় হলো রেলওয়ের টিকিট সংগ্রহে ভোগান্তি। বর্তমানে রেলওয়ের ই-টিকিট সেবা চালু থাকলেও প্রান্তিক মানুষের প্রযুক্তি সম্পর্কে পর্যাপ্ত জ্ঞান না থাকায় এ সেবা গ্রহণ করতে পারছেন না অনেকেই।

এই সুযোগ কাজে লাগিয়ে আন্তনগর লালমনি এক্সপ্রেস, কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস ও রংপুর এক্সপ্রেস ট্রেনের টিকিট সংগ্রহ করে বেশি দামে বিক্রি করার অভিযোগ উঠেছে খোদ রেলওয়ের লালমনিরহাট বিভাগীয় বাণিজ্যিক কর্মকর্তার (ডিসিও) ড্রাইভার সোহেলের বিরুদ্ধে।

অনুসন্ধানে জানা গেছে, ডিসিও’র ড্রাইভার হওয়ার সুবাদে সোহেল লালমনিরহাট ডিভিশনের বিভিন্ন স্টেশনে প্রভাব খাটিয়ে অগ্রিম টিকিট সংগ্রহ করেন। পরে সিন্ডিকেটের মাধ্যমে তা দ্বিগুণ দামে বিক্রি করা হয়।

সাম্প্রতিক সময় লালমনিরহাট বুকিং সহকারীর কাছ থেকে লালমনি এক্সপ্রেস টেনের টিকিট, কুড়িগ্রাম বুকিং সহকারীর কাছ থেকে কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেসের টিকিট, রংপুর বুকিং সহকারীর কাছ থেকে রংপুর এক্সপ্রেস ট্রেনের টিকিট এবং দিনাজপুর বুকিং সহকারীর কাছ থেকে টিকিট সংগ্রহ করেন।

শুধু তাই নয়, সোহেল লালমনিরহাট বিভাগীয় রেলওয়ের অধীনস্থ প্রতিটি রেল স্টেশন থেকে ডিসিও’র নাম ভাঙিয়ে টিকিট সংগ্রহ করে তা কালোবাজারে বিক্রি করে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক লালমনিরহাট রেল বিভাগের একাধিক কর্মচারী বলেন, ‘ডিসিও’র ড্রাইভার হওয়ার কারণে দীর্ঘদিন থেকে টিকিট কালোবাজারির সাথে জড়িত সোহেল। তার একটা সিন্ডিকেট আছে। যারা টিকিট সংগ্রহ করে দ্বিগুন দামে জনগনের কাছে বিক্রি করে আসছে। বিষয়টি তদন্ত করে ওই ড্রাইভারের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানান তারা।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত ডিসিও’র ড্রাইভার সোহেল বলেন, কাউনিয়া ছাড়া অন্য কোনো স্টেশন থেকে আমার নামে কোনও টিকিট আসেনা। তবে তিনি বিষয়টি নিয়ে রিপোর্ট প্রকাশ না করতে অনুরোধ জানান।

এ বিষয়ে বিভাগীয় রেলওয়ে ম্যানেজার শাহ সুফি নুর মোহাম্মদ বলেন, টিকিট কালোবাজারির বিষয়টি নিয়ে আমি অবগত নই, তবে অভিযুক্ত ব্যক্তির নামে প্রমাণ পেলে ব্যবস্হা গ্রহণ করা হবে।

আপনার মন্তব্য লিখুন