ঢাকামঙ্গলবার , ২৬ জুলাই ২০২২
  1. Covid-19
  2. অপরাধ ও আদালত
  3. অর্থনীতি
  4. আন্তর্জাতিক
  5. ইসলাম ডেস্ক
  6. কৃষি ও অর্থনীতি
  7. খেলাধুলা
  8. জাতীয়
  9. তথ্য-প্রযুক্তি
  10. দেশজুড়ে
  11. নির্বাচন
  12. বানিজ্য
  13. বিনোদন
  14. ভিডিও গ্যালারী
  15. মুক্ত মতামত ও বিবিধ কথা
আজকের সর্বশেষ সবখবর

লোডশেডিং: লালমনিরহাটে চার্জার ফ্যান-লাইটের বাজারে আগুন!

প্রতিবেদক
প্রতিদিনের বাংলাদেশ
জুলাই ২৬, ২০২২ ৫:২১ অপরাহ্ণ
Link Copied!

খাজা রাশেদ, লালমনিরহাটঃ জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধির জেরে বিদ্যুৎ সংকট মোকাবেলায় সারাদেশে এলাকাভিত্তিক লোডশেডিং দেয়ার সরকারি ঘোষণার পরপরই বাজারে চাহিদা বেড়ে গেছে চার্জার ফ্যান,চার্জার লাইট,পাওয়ার ব্যাংক সহ আইপিএস এর।

হটাৎ চাহিদা বাড়ায় দাম ও বাড়িয়ে দিচ্ছেন ব্যবসায়ীরা। সরকার কতৃক লোডশেডিংয়ের ঘোষণার পরই বাজারে এসবের চাহিদা ও দাম দুটোই বেড়েছে।

লালমনিরহাটের পৌর এলাকা ও সদর উপজেলার কয়েকটি বাজার ঘুরলে দেখা যায় তীব্র গরমে লোডশেডিংয়ের হাত থেকে বাচতে মানুষজন চার্জার ফ্যান,চার্জার লাইট ইত্যাদি পণ্য কিনতে ইলেকট্রনিকসের দোকানে-দোকানে ভীড় জমাচ্ছেন। যে কারণে বর্তমানে অন্য ব্যবসায়ী দোকানের তুলনায় ইলেকট্রনিকস পণ্যের দোকানগুলোতে বেড়েছে ভীড় সেই সাথে বেড়েছে বেচাবিক্রি ও।

এমনই কয়েকজন ক্রেতার সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, প্রচন্ড তাপদাহের মাঝে তীব্র গরমে লোডশেডিংয়ের হাত থেকে বাঁচতে চার্জার ফ্যান,চার্জার লাইট ও মোবাইল চার্জ দেয়ার পাওয়ার ব্যাংক কিনছেন তারা। যাদের সামর্থ্য আছে তারা কিনছেন আইপিএস। শহরের রেলবাজারের একটি ইলেকট্রনিকসের দোকানে কথা হয় খাতাপাড়া মাজার এলাকার আমু বাদশা (৪২) নামের একজন ক্রেতার সাথে তিনি বলেন,বর্তমানে প্রচন্ড গরম তার উপড়ে লোডশেডিং। ঘরে ছোট,ছোট বাচ্চা আছে তাই বাধ্য হয়েই আর্থিক সমস্যার মধ্যে ও আইপিএস এর অর্ডার দিতে এসেছি। জানা যায়, বর্তমানে চাহিদা বেশি থাকায় এসব পণ্যের দাম বাড়ার বিষয়ে দোকানীদের ভাষ্য বর্তমানে অর্ডার দিয়ে ও পর্যাপ্ত মাল পাওয়া যাচ্ছেনা তাই, স্বাভাবিক ভাবেই দাম কিছুটা বেড়েছে।

লালমনিরহাট শহরের মিশনমোড়ের কাজী এন্টারপ্রাইজ এর মালিক রবিউল কাজী বলেন, লোডশেডিংয়ের ঘোষণার পড়েই আমদানিকারকরা পণ্যের দাম বাড়িয়ে দিয়েছেন। বর্তমানে চাহিদা অনুযায়ী অর্ডার দিয়ে ও মাল পাচ্ছিনা। চাহিদা বেড়েছে বিপরীতে মার্কেটে সরবরাহ কম থাকায় বর্তমানে একটু বেশি দামে পণ্য বিক্রি করতে হচ্ছে। সদর উপজেলার মহেন্দ্রনগর,বড়বাড়ী ও শহরের রেলবাজার,বাটামোড়,উত্তরা রোডের ইলেকট্রনিকসের মার্কেট ঘুরে একই চিত্র লক্ষ্য করা গেছে।

ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণের এক কর্মকর্তা জানান, লোডশেডিংয়ের ঘোষণা দেওয়ার পরপরই চার্জার ফ্যানের দাম বাড়ল। এমন তো নয় যে, ওইদিনই জরুরিভিত্তিতে বেশি দামে চীন থেকে বিমানে চার্জার ফ্যান আনা হয়েছে। তাহলে কেন এত অল্প সময়ের ব্যবধানে দাম বাড়ল? চাহিদা বাড়ার কারণে বিক্রি বেশি হচ্ছে। বিক্রি বেশি হলে মুনাফাও বেশি হবে। তবুও অযৌক্তিকভাবে অতিরিক্ত মুনাফা করতে হবে কেন? তিনি বলেন, অধিদপ্তর ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে নয়। কিন্তু অসাধু ব্যবসায়ীদের ছাড় দেওয়ার পক্ষেও নয়।

এবিষয়ে লালমনিরহাট জেলা প্রশাসন গণমাধ্যমকে জানান, চার্জার ফ্যান লাইট এর অতিরিক্ত মূল্য বৃদ্ধির বিষয়ে আমরা পর্যালোচনা করে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেব।

আপনার মন্তব্য লিখুন