ঢাকাবুধবার , ২৬ জানুয়ারি ২০২২
  1. Covid-19
  2. অপরাধ ও আদালত
  3. অর্থনীতি
  4. আন্তর্জাতিক
  5. ইসলাম ডেস্ক
  6. কৃষি ও অর্থনীতি
  7. খেলাধুলা
  8. জাতীয়
  9. তথ্য-প্রযুক্তি
  10. দেশজুড়ে
  11. নির্বাচন
  12. বানিজ্য
  13. বিনোদন
  14. ভিডিও গ্যালারী
  15. মুক্ত মতামত ও বিবিধ কথা
আজকের সর্বশেষ সবখবর

সংবাদ প্রচারের পর নড়েচড়ে বসলো প্রশাসন: সেই শিক্ষা কর্মকর্তাকে এবার শোকজ!

প্রতিবেদক
প্রতিদিনের বাংলাদেশ
জানুয়ারি ২৬, ২০২২ ২:৪৩ অপরাহ্ণ
Link Copied!


রাশেদুল ইসলাম রাশেদ,স্টাফ রিপোর্টারঃ গাইবান্ধায় মাধ্যমিক পর্যায়ের সরকারি পুরাতন বিপুল পরিমাণের বই নামমাত্র মূল্যে বিক্রির ঘটনার তদন্তে তিন সদস্যের কমিটি গঠন করেছে৷ সাদুল্লাপুর উপজেলা প্রশাসন। সেই সঙ্গে অভিযুক্ত উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা এইচ এম মাহাবুবুল আলমকে কারণ দর্শানো হয়েছে।

তদন্ত কমিটিতে সাদুল্লাপুর উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ মো. মতিউল আলমকে প্রধান করা হয়েছে। এই কমিটিতে সদস্য করা হয়েছে সমাজসেবা কর্মকর্তা মানিক রায় এবং প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা আরিফুর রহমান কনককে। কমিটিকে আগামী ৫ কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হয়েছে।

এর আগে, গত ২৩ জানুয়ারি গোপন নিলামে সরকারি পুরাতন বই বিক্রির ঘটনা নিয়ে প্রতিদিনের বাংলাদেশসহ বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশ হলে নড়েচড়ে বসে উপজেলা প্রশাসন।
আরো পড়ুনঃ গুদাম ঘরের সরকারি বই গোপনে বিক্রি, দাম নিয়ে রহস্য!
মঙ্গলবার (২৫ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় বিষয়টি নিশ্চিত করে সাদুল্লাপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোছা. রোকসানা বেগম জানান, বই বিক্রির ঘটনায় শিক্ষা কর্মকর্তা এইচ এম মাহাবুবুল আলমকে কারণ দর্শানো হয়েছে। এছাড়া ঘটনাটি তদন্ত করতে তিন সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনের আলোকে পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

প্রসঙ্গত, গত ২৩ জানুয়ারি সাদুল্লাপুর সাব-রেজিস্টার অফিস ভবনের স্টোর রুমসহ তিনটি গুদামে সংরক্ষিত ২০১৬ থেকে ২০২০ শিক্ষাবর্ষের বিপুল পরিমাণের পুরাতন বই বিক্রির ঘটনা ঘটে। মাধ্যমিক স্তরের বিভিন্ন শ্রেণির মজুদ থাকা বইগুলোর বাজার মূল্য প্রায় ৫ লাখ টাকা বলে জানা গেছে। কিন্তু গোপন নিলামে এসব বই অর্ধলাখ টাকায় বিক্রির অভিযোগ উঠে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা এইচ এম মাহাবুবুল আলমের বিরুদ্ধে।
রাশেদুল ইসলাম রাশেদ/আরইসআর

আপনার মন্তব্য লিখুন