ঢাকামঙ্গলবার , ২ মে ২০২৩
  1. Covid-19
  2. অপরাধ ও আদালত
  3. অর্থনীতি
  4. আন্তর্জাতিক
  5. ইসলাম ডেস্ক
  6. কৃষি ও অর্থনীতি
  7. খেলাধুলা
  8. জাতীয়
  9. তথ্য-প্রযুক্তি
  10. দেশজুড়ে
  11. নির্বাচন
  12. বানিজ্য
  13. বিনোদন
  14. ভিডিও গ্যালারী
  15. মুক্ত মতামত ও বিবিধ কথা
আজকের সর্বশেষ সবখবর

৪৪ কোটি টাকা পরিশোধের দাবিতে বুড়িমারী স্থলবন্দরে শ্রমিকদের মানববন্ধন!

প্রতিবেদক
প্রতিদিনের বাংলাদেশ
মে ২, ২০২৩ ৪:৫৬ অপরাহ্ণ
Link Copied!

আশরাফুল হক, লালমনিরহাট।। আন্তর্জাতিক মে দিবসে শ্রমিকদের বকেয়া পাওনা ৪৪ কোটি টাকা পরিশোধের দাবিতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ করেছেন লালমনিরহাটের বুড়িমারী স্থলবন্দরে শ্রমিকরা। পাটগ্রাম উপজেলার বুড়িমারী শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশনের ব্যানারে স্থলবন্দর সড়কে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করেন শ্রমিকরা।
Add 99998
শ্রমিকরা জানান, বুড়িমারী স্থলবন্দরে ভারত বাংলাদেশের ট্রাকের পণ্য লোড অনলোডে করতে কাজ করছেন ৪টি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের শ্রমিকরা। ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান যতসামান্য মজুরী পরিশোধ করলেও চিকিৎসাসহ বিভিন্ন ভাতার তহবিলের নাম করে জমা রাখে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান। ৪টি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৩ টি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান তাদের শ্রমিকদের পাওনা বকেয়া রাখেন।

দীর্ঘ দিনের এ পাওনা আজ কাল বলে কালক্ষেপন করেন এ ৩ ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান। এ ছাড়াও শ্রমিকদের চিকিৎসা ভাতাসহ বিভিন্ন তহবিলে নেয়া শ্রমিকদের দীর্ঘ দিনের মজুরীর অংশের কোন হিসাব দেয়া হয়নি। এভাবে শ্রমিকদের পাওনা বকেয়া পড়ে প্রায় ৪৪ কোটি টাকা। গত ২০১০ সালে নির্ধারন করা দৈনিক দুইশত টাকা মজুরীতে ২০২৩ সালেও শ্রমিকদের কাজ করতে হচ্ছে। দ্রব্যমুল্যের ঊর্দ্ধগতিতে শ্রমিকদের মজুরী বাড়ানোর দাবি করলেও তা পুরন করছেন না ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানগুলো।

শ্রমিকদের বকেয়া রাখা ঠাকাদারী প্রতিষ্ঠানগুলো হলো, ড্রোপ কমিউনিকেশন লিমিটেড, মেসার্স আবতাহি ট্রেড ইন্টারন্যাশনাল ও হোসনে আরা এন্টারপ্রাইজ জেভি। তারা দীর্ঘ দিন ধরে শ্রমিকদের মজুরী বকেয়া রাখে। তা পরিশোধের জন্য শ্রমিকরা দীর্ঘ দিন ধরে তাদের সাথে যোগাযোগ করে আসছে। এতদিন দেই দিচ্ছি দিব বলে জানালেও চলতি বছরের শুরুর দিকে এ তিন ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান বকেয়া নেই বলে জানালে ক্ষুব্ধ হয়ে পড়ে শ্রমিকরা।

প্রথম দিকে শ্রমিকরা তাদের পাওনাদি পরিশোধসহ ৬ টি দাবি বাস্তবায়নের আবেদন জানিয়ে বুড়িমারী স্থলবন্দর শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশনে আবেদন করেন। তাতেও কোন সুফল না পেয়ে গত ৪ ফেব্রুয়ারি কাজ ফেলে বিক্ষোভ করেন শ্রমিকরা। এতে কার্যত অচল হয়ে পড়ে বুড়িমারী স্থলবন্দর।
ওই দিন দুপুরে পাটগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান তাহাজুল ইসলাম মিঠু শ্রমিকদের প্রতিবাদ সমাবেশ যোগ দেন। সন্ধ্যার মধ্যে আলোচনা করে বকেয়া পাওনা পরিশোধের আশ্বাস দিলে শ্রমিকরা তাদের অবরোধ প্রত্যাহার করে নেন। কিন্তু সেই আশ্বাসের ৩ মাস অতিবাহিত হলেও কোন সুফল মেলেনি শ্রমিকদের। এ ছাড়াও একটি চিহ্নিত গ্রুপ শ্রমিকদের নাম করে টাকা হাতিয়ে নিয়ে সাধারন শ্রমিকদের অধিকার বঞ্চিত করে আসছে।

তাই আন্তর্জাতিক মে দিবসে পুনরায় দাবি তুলে বুড়িমারী শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশনের ব্যানারে বুড়িমারী স্থলবন্দরে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ করেন শ্রমিকরা। অনতিবিলম্বে শ্রমিকদের পাওনা বুঝে দিয়ে পুরাতন কমিটি ভেঙ্গে প্রত্যক্ষ ভোটে কমিটি গঠন ও মজুরী বাড়ানোর দাবি জানান শ্রমিকরা। অন্যথায় কঠোর আন্দোলনের হুশিয়ারী দেয়া হয়।

সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, বুড়িমারী শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশনের সভাপতি সামছুল হুদা, সম্পাদক আনোয়ার হোসেন, সহ সভাপতি সাজ্জাদ হোসেন, সাংগঠনিক রেজোয়ান হোসেন, সাধারন শ্রমিক আমেনা বেগম, মনোয়ারা বেগম, হামিদুর রহমান ও আতোয়ার রহমান প্রমুখ।

আপনার মন্তব্য লিখুন